Home / International / সৌদি নারীদের জন্য নতুন আইন

সৌদি নারীদের জন্য নতুন আইন

সৌদি আরবে প্রাপ্তবয়স্ক যেকোন নারী তা’দের পুরুষ অভিভাবকের অনুমতি ছাড়াই একা বসবাস করতে পারবেন। বিবাহিত, অবিবাহিত ও সেপারেটেড যেকোন নারী চাইলে একা একাই নিজের পছন্দের বাড়িতে থা’কতে পারবেন। এ ক্ষেত্রে তাদের প্রয়ো’জন হবে না স্বামী, বাবা ও অন্যকোন পুরুষের অনুমতি।

সম্প্রতি সৌদি আরব কর্তৃপক্ষ দে’শটির শরিয়াহ আইনের আর্টিকেল ১৬৯ এর বি ধারাটি বাতিল করে। যেখানে লেখা ছি’ল বিবাহিত, অবিবাহিত ও সেপারেটেড নারীদের তাদের পুরুষ অভিভাবকের অ’ধীনস্থ থাকতে হবে। নতুন আইন অনুযায়ী যেকোন প্রাপ্তবয়স্ক নারীর আলাদা থা’কার অ’ধিকার রয়েছে। এক্ষেত্রে পুরুষ অভিভাবক তার বিরুদ্ধে কোন ধরনের অভিযোগ করতে পারবেন না। শুধু তখনই অভিযোগ করতে পারবেন যখন উক্ত নারী কোন অপ’রাধ করবেন।

আ’ইনটিতে আরও বলা হয়েছে, যদি কোনো নারী দণ্ডপ্রাপ্ত হয় এবং সাজার মেয়াদ শেষ হলে কারাগার থেকে তাকে অভিভাবকের হাতে সোপর্দ করা হবে না। যদি উক্ত নারী না চান। নাঈফ আল মানসি নামের এক আইনজীবী বলেন, একজন প্রাপ্তবয়স্ক নারী কোথায় থাকবেন সে ব্যপারে সিদ্ধান্ত নেয়ার অধিকার তার রয়েছে। কেউ যদি একা থাকতে চায় পরিবারও তার বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ দায়ের করতে পারবে না।

দীর্ঘদিন ধরে সৌদি আরবের প্রচলিত নিয়ম ছিল, প্রত্যেক নারীকে একজন পুরুষের অধীনে থাকতে হত। যিনি হবেন তার স্বামী, ভাই, ছেলে, বাবা অথবা চাচা। সৌদি আরবের যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের পরামর্শে দেশটি ভিশন ২০৩০ বাস্তবায়ন নিয়ে কাজ করছে। সেই লক্ষ্যে এসব বাধা তুলে দিচ্ছে সৌদি আরব।

এরআগে ২০১৯ সালের আগস্ট মাসে সৌদি আরব নারীদের ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়। পুরুষ অভিভাবকের অনুমতি ছাড়াই ২১ বছরের বেশি হলেই তারা পাসপোর্টের জন্য আবেদন করতে পারছেন। ভ্রমণের করতে পারছেন ইচ্ছে মতো পছন্দের জায়গায়।
সূত্র: গালফ নিউজ

About ja

Check Also

কয়েক হাজার শ্রমিককে ফেরত পাঠাচ্ছে মালয়েশিয়া

কয়েক হাজার অ’নিবন্ধি’ত ইন্দোনেশীয় অভিবাসীকে নিজ দেশে ফেরত পাঠাচ্ছে মালয়েশিয়া। দেশটিতে ক’রো’না ম’হামা’রি শুরুর পর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *