Home / প্রবাস / দুবাই যেতে বিমানবন্দরে এসে না ফেরার দেশে আবু মুসা

দুবাই যেতে বিমানবন্দরে এসে না ফেরার দেশে আবু মুসা

ভাগ্য বদলাতে দুবাই যাওয়ার কথা মোসলেম মিয়া ওরফে আবু মুসার। সোমবার (১৮ অক্টোবর) দুপুরে এসেছিলেন শাহ’জালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে। সন্ধ্যা ৭টায় ফ্লাই দুবাইয়ের ফ্লাইট ধরতে বিমানবন্দরে এসে মারা গেছেন তিনি।

জানা গেছে, দুপুরে বিমানবন্দরে প্রবেশ করেন মোসলেম মিয়া ওরফে আবু মুসা। ক’রোনা প’রীক্ষার লাইনে দাঁড়ানোর পর অজ্ঞান হয়ে পড়েন তিনি। বিমানবন্দরের চিকিৎসকরা তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া শুরু করেন। তবে এরমধ্যেই মারা যান তিনি।

মোসলেম মিয়ার শ্যালক শাহাদাত হোসেন বলেন, প্রায় ১০ বছর ধরে দুবাইয়ে আছেন মোসলেম মিয়া ওরফে আবু মুসা। জানু’য়ারিতে ছু’টিতে দেশে আসেন। আরব আমিরাতের নিষেধাজ্ঞার কারণে আটকা পড়ে যান তিনি। সম্প্রতি আবারো ফ্লাইট চালু হলে কাজে ফেরার জন্য দুবাই যেতে প্রস্তুতি নেন তিনি। তবে তার আর কাজে ফেরা হয়নি।

এক ছেলে ও এক কন্যার পিতা মোসলেম মিয়া ওরফে আবু মুসা। তার মৃত্যুতে পরিবারে শোকের ছায়া নেমে যাচ্ছে এসেছে। চট্ট’গ্রামের ফটিকছড়িতে তাকে দাফন করা হবে। বিমানবন্দরের প্রবাসীকল্যাণ ডেস্ক জানিয়েছে, এই প্রবাসী যাত্রী বোর্ডিং কার্ড নেওয়ার আগেই মারা গেছেন। তি’নি যাত্রার পূর্বে করোনা পরীক্ষার জন্য প্রবাসীকল্যাণ ডেস্কে এসে প্রত্যয়নপত্র নিয়েছিলেন।

প্রবাসী কল্যাণ ডেস্কের কর্মকর্তা ফখরুল আলম বলেন, ওই যাত্রী প্রত্যয়নপত্র নিয়ে যাওয়ার সময় মাথা ঘুরে পড়ে যান। তাকে বিমানবন্দরের স্বাস্থ্য ডেস্কে তাৎক্ষণিক নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানকার স্বাস্থ্য কর্মকর্তা তার শারীরিক অবস্থা পর্যবেক্ষণ করে দেখেন তিনি মারা গেছেন। তার পরিবারকে দাফনের জন্য ৩৫ হাজার টাকা অনুদানের চেক দেওয়া হয়েছে। প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের অ্যাম্বুলেন্সে করে তার মরদেহ বাড়িতে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হয়‌।

বিমানবন্দরে স্বাস্থ্য বিভাগের সহকারী পরিচালক ডা. শাহরিয়ার সাজ্জাদ বলেন, অসুস্থ যাত্রীর খবর পেয়েই আমরা প্রাথমিক চিকিৎসা শুরু করি। এরমধ্যেই তিনি মারা যান। আমরা ধারণা করছি তিনি হার্ট অ্যাটকে মারা গেছেন।

About ja

Check Also

কুয়েতের ভিসা নবায়ন প্রক্রিয়া চলমান

গুজব ছ’ড়িয়েছে যে, যেসব প্রবাসীরা ৬ মাসের বেশি কু’য়েতের বাইরে অবস্থান করছেন, তাদের ভিসা নবায়নের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *