Breaking News
Home / Probash / সিঙ্গাপুর বিধিনিষেধের দেয়ালেও ফাটল

সিঙ্গাপুর বিধিনিষেধের দেয়ালেও ফাটল

সিঙ্গাপুরের ঘটনা অবশ্য ভিন্ন। দেশটিতে সংক্রমণের হার কম থাকলেও কড়া’কড়িতে কো’নো ছাড় দেওয়া হয়নি। আটজনের বেশি জড়ো না হওয়া, ক্লাবগুলো বন্ধ এবং বিয়ের মতো অনুষ্ঠানে বড় জনসমাগমে কড়াকড়ি এখনও আছে। কিন্তু সিঙ্গাপুরে এখনও বড় ঘাটতি রয়ে গেছে টিকার ক্ষেত্রে। ফলাফল- মে মাসের শেষ দিকে এসে চাঙ্গি বিমানবন্দর হয়ে উঠেছে দেশটিতে সবচেয়ে বড় সংক্রমণের স্থান।

পরে দেখা গেছে, বিমানবন্দর কর্মীদের উল্লেখযোগ্য অংশ এমন একটি জোনে কাজ করেছিলেন, যেখানে সংক্রম’ণের উ’চ্চঝুঁকির দেশগুলো থেকে লোকজন এসে জড়ো হত। এর মধ্যে দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর যাত্রীরাও ছিলেন। বিদেশি এই শ্রমিকদের কেউ কেউ বিমানবন্দরের উন্মুক্ত ফুড’কোর্টে খাওয়া-দাওয়া করেছেন, ফলে সেখানেও আরেক দফা সংক্রমণ ছড়িয়েছে।

এ ঘটনার পর বিমানবন্দরের যাত্রী টার্মিনালগুলো সাময়িকভাবে বন্ধ করতে বাধ্য হয়েছে সিঙ্গাপুর। নতুন করে সং’ক্রমিতদের মধ্যে করোনাভাইরাসের ভারতীয় ধরনটির অস্তিত্ব পাওয়া গেছে, যেটি খুব দ্রুত ছড়াতে সক্ষম।

সিঙ্গাপুরের বিমানবন্দরে এখন সংক্রমণের উচ্চ ঝুঁকিতে থাকা দেশ এবং কম ঝুঁকির দেশগুলো থেকে আসা যাত্রী’দের আলাদা রাখার ব্যবস্থা হয়েছে। তাছাড়া বিমানবন্দরের কর্মীরাও কাজ করবেন নিরাপত্তা বেষ্টনীর মধ্যে থেকে।

মাসখানেক আগে এসব ফাঁকফোকরের কথা বলা হলেও এসব ব্যবস্থা কেন আগেভাগে নেওয়া হল না, এমন প্রশ্ন তু’লছেন অনেকেই। অবশ্য ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অব সিঙ্গাপুরের স্কুল অব পাবলিক হেলথের অধ্যাপক তিও ইক ইংয়ের মতে, ভাইরাসের নতুন ধরনটির সিঙ্গাপুরে আ’সাটা ছিল ‘অনিবার্য’।

“মানুষ কেন হতাশ সেটা আমি বুঝি, কারণ বেশিরভাগ নাগরিকই অতিমাত্রায় অনুগত। কিন্তু আমরা চীনের মত সীমান্ত পুরো’পুরি বন্ধ করতে পারিনি। দেশ হিসেবে, অর্থনীতি হিসেবে আম’রা হচ্ছি ব্যবসা-বাণিজ্যের কেন্দ্র।

“আমরা যদি গতবছর যুক্তরাষ্ট্রের পরিস্থিতির দিকে দেখি, সেখানে ভাইরাসটি চীন থেকে যায়নি, ইউরোপ থেকে যাওয়া লোকজনের মাধ্যমে ছড়িয়েছে। তাহলে কতগুলো দেশের সঙ্গে সিঙ্গাপুর সীমান্ত বন্ধ করবে? বি’ষয়টা শুধু একটা দেশের সঙ্গে সীমান্ত বন্ধ করার ওপর নির্ভর করে না, এটা বুঝতে হবে।” তবে সংক্রমণ বিস্তার রোধে দেশটি এখনও খুব ভালো অবস্থানে আছে বলে মনে করেন অধ্যাপক কুক।

“কোনো ভুল হয়েছে কিনা, সেটা নিয়ে আমা’র দ্বিধা আছে। যুক্তরাজ্যের সঙ্গে তুলনা করলে দেখা যাবে, জনসংখ্যার বিচারে সেখানকার চেয়ে দৈনিক সংক্রমণের হার এখানে ১০ শতাংশের আশপাশে থাকছে। অন্যদিকে ভাইরাসটি ভ’য়ঙ্কর রূপ ধারণ করার আগেই সিঙ্গাপুর প্রয়োজনীয় কঠোর ব্যবস্থা নিচ্ছে।”
সূত্র: বিডিনিউজ২৪

About ja

Check Also

ভ্রমণকারীদের জন্য সুখবর দিলো আরব আমিরাতের রাজধানী আবুধাবি

ভ্রমণকারীদের জন্য সুখবর দিলো আরব আমিরাতের রাজধানী আবুধাবি। যে কোনো দেশ থেকে ভ্রমণ ভিসাধারী এবং …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *